Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

সিটিজেন চার্টার

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, কুড়িগ্রাম কর্তৃক প্রদত্ত  নাগরিক সেবা কার্যক্রমঃ

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর যে সব সেবা প্রদান করে থাকে তা প্রদত্ত হলোঃ

১। প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত সেবা সমূহ :

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সাধারণত দুই ধরণের প্রশিক্ষণ সেবা দিয়ে থাকে।
ক) প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে প্রশিক্ষণ
খ) অ
প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে প্রশিক্ষণ

 প্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ ট্রেড সমূহঃ

ক্রমিকনং

প্রশিক্ষণ কোর্সের নাম

মেয়াদকাল

কোর্স শুরুর তারিখ

লক্ষমাত্রা

শিক্ষাগত যোগ্যতা

কোর্স ফি

মন্তব্য

০১

মর্ডানঅফিসম্যানেজমেন্টএন্ডকম্পিউটারএ্যাপ্লিকেশন

০৬ মাস

১লাজুলাইও

১লাজানুয়ারী

৬০ জন

এইচ,এস,সি

৫০০/-

 

০২

পোষাকতৈরী

০৩ মাস/

 

 

০৬ মাস

১লাজুলাই,

১লা অক্টোবর ও

১লাজানুয়ারী

১২০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৫০/-

 

০৩

মৎস্য চাষ

০১ মাস

প্রতিমাসের

১তারিখ

২৪০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৫০/-

 

০৪

কম্পিউটার বেসিক

০৬ মাস

১লাজুলাই ও

১লাজানুয়ারী

৮০ জন

এইচ, এস, সি

১০০০/-

 

০৫

ইলেকট্রনিক্স

০৬ মাস

১লাজুলাই ও

১লাজানুয়ারী

৬০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৩০০/-

 

০৬

ইলেকট্রিক্যালএন্ডহাউজওয়্যারিং

০৬ মাস

১লাজুলাইও

১লাজানুয়ারী

৬০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৩০০/-

 

০৭

রেফ্রিজারেশনস  এন্ড এয়ারকান্ডিশনিং

০৬ মাস

১লাজুলাই ও

১লাজানুয়ারী

৬০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৩০০/-

 

০৮

পশুপালন, মৎস্য চাষ ও কৃষিবিষয়ক

০২ মাস ১৫ দিন

 

১লা জুলাই হতে

 

অষ্টম শ্রেণী

১০০/-

 

০৯

সুয়েটার লিংকিং

০১ মাস

প্রতিমাসের

১তারিখ

২৪০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৩০০/-

 

১০

সুয়েটারনিটিং

০১মাস

প্রতিমাসের

১তারিখ

৪৮০ জন

অষ্টম  শ্রেণী

৩০০/-

 

কুড়িগ্রাম জেলায় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের  কার্যক্রমঃ

 

             যুব সমাজকে সুশৃংখল ও সুসংগঠিত করে জাতীয় উন্নয়ন প্রক্রিয়ায় সম্পৃক্তকরণ এবং সঠিক দিক-নির্দেশনা, জ্ঞান ও দক্ষতা প্রদানের মাধ্যমে মানব সম্পদে পরিণত করার লক্ষ্যে যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর,কুড়িগ্রামে নিম্নবর্ণিত কর্মসূচি চালু রয়েছেঃ

 

১)  বেকার যুবদের দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ কর্মসূচিঃ

 

এ কর্মসূচির মাধ্যমে গবাদিপশু, হাসঁমুরগী পালন, মৎস্য চাষ ও কৃষি বিষয়ক প্রশিক্ষণ, পোশাক তৈরী, নার্সারী, ফল গাছের বংশ বিস্তার এবং ফল বাগান তৈরী ও ব্যবস্থাপনা প্রশিক্ষণ, গরু মোটাতাজা করণ প্রশিক্ষণ, সোয়েটার নিটিং, মেশিন অপারেটিং এবং লিংকিং মেশিন অপারেটিং প্রশিক্ষণ, মডার্ণ অফিস ম্যানেজমেন্ট এন্ড কম্পিউটার এ্যাপ্লিকেশন প্রশিক্ষণ কোর্স, ইলেকট্রিক্যাল এন্ড হাউজওয়্যারিং প্রশিক্ষণ, রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ার-কন্ডিশনিং প্রশিক্ষণ কোর্স, ইলেকট্রনিক্স প্রশিক্ষণ, কম্পিউটার বেসিক কোর্স এবং কম্পিউটার গ্রাফিক্স ডিজাইন ও ভিডিও এডিটিং সহ ইত্যাদি কোর্সে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়ে থাকে।

প্রশিক্ষণ কর্মসূচি:

 

(ক) প্রাতিষ্ঠানিক :

ক্রমিক নং

প্রশিক্ষণ কোর্সের নাম

২০১৬-২০৭ অর্থবছরের

 

অগ্রগতি

ক্রমপুঞ্জিত অগ্রগতি

০১

পোষাক সতৈরী

৭৬

১৮৭৪

০২

মৎস্য চাষ

২৭১

৩১৭০

০৩

মডার্ণ অফিস ম্যানেজমেন্ট এন্ড কম্পিউটার এ্যাপ্লিকেশন

৩০

৫৯৯

০৪

কম্পিউটার বেসিক

৫৮

১৩৮৪

০৫

ইলেকট্রিক্যাল

৩০

৬৯০

০৬

ইলেকট্রনিক্স

২৩

৬২১

০৭

রেফ্রিজারেশন এন্ড কন্ডি:

১৯

৩৬৬

০৮ সোয়েটার নিটিং ৩৬০

৪০৪৫

 

 

০৯

 

সোয়েটার লিংকিং
১৮০ ২১৫২

 

১০

 

 

গবাদি পশু, হাঁস মূরগী পালন, মৎস্য চাষ এবং কৃষি

 

বিষয়ক প্রশিক্ষণ

৯১

৭৫১

১১ সোয়েটার নিটিং (SEIP) ১২০ ১৯০
১২ সোয়েটার লিংকিং(SEIP) ৯০ ১৪০

সর্বমোট=

১৪০২

১৭১২৯

(খ) অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণের তথ্যাদি নিম্নরুপ (৯ টি উপজেলা):

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

২০১৬-২০১৭ অর্থবছর

ক্রমপুঞ্জিত

০১

কুড়িগ্রাম সদর

২১০

৫২৫৩

০২

রাজারহাট

২১০

৫৩১৩

০৩

উলিপুর

২১৫

৫৩২৩

০৪

চিলমারী

১৮০

৪৫৯৯

০৫

রৌমারী

১৮৪

৫০৮৩

০৬

রাজিবপুর

২৪০

৪০০৩

০৭

নাগেশ্বরী

২১০

৬০৯০

০৮

ফুলবাড়ী

২১০

৪৮৩৪

০৯

ভূরুংঙ্গামারী

২১০

৫২১৪

 

সর্বমোট=

১৮৬৯

৪৫৭১২

     

 

গ)  কুড়িগ্রাম জেলা কার্যালয় কর্তৃক পরিচালিত সাবেক ছিটমহল, জেলা কারাগার  ও শেখ হাসিনা জাতীয় যুব কেন্দ্রের আওতায় পরিচালিত প্রশিক্ষণ প্রদান :

 

প্রশিক্ষণের ধরণ

প্রশিক্ষণের বিষয়

২০১৬-২০১৭

অর্থ বছরে অগ্রগতি

ক্রমপুঞ্জিত অগ্রগতি

১।প্রাতিষ্ঠানিক

 

সাবেক ছিটমহল

কম্পিউটার বেসিক

-

৪৮

মৎস্য চাষ

-

৫০

জেলা কারাগার

ব্যাগ তৈরী

-

৬০

শেখ হাসিনা জাতীয় যুব কেন্দ্রের প্রশিক্ষণ

নারীর ক্ষমতায়ন ও সমতা

-

৫০

ফ্রিল্যান্সিং/

আউট সোর্সিং

 

৫৪

১৬২

ফ্রিল্যান্সিং/

আউট সোর্সিং রিফ্রেসার্স

 

৩০

৬০

মোট :

৮৪

৪৩০

২।অপ্রাতিষ্ঠানিক

সাবেক ছিটমহল

গরুমোটাতাজা

করণ

১৯৮

১৯৮

সর্বমোট :

 

প্রাতিষ্ঠানিক (ক,গ)      ১৭১২৯+৪৩০=১৭৫৫৯ জন

 

অপ্রাতিষ্ঠানিক (খ,গ)   ৪৫৭১২+১৯৮=৪৫৯১০ জন

 

 

২)     প্রশিক্ষিত যুবদের আত্মকর্মসংস্থান কর্মসূচিঃ

 

এ কর্মসূচির মাধ্যমে প্রশিক্ষিত যুবদের যুব ঋণ সহায়তা ও উদ্বুদ্ধকরণের মাধ্যমে আত্মকর্মে নিয়োজিত করা হয়।

 

আত্মকর্মসংস্থান এর তথ্য নিম্নরুপ (উপজেলা ওয়ারী) :

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

২০১৬-২০১৭

 

অর্থবছরের অগ্রগতি

ক্রমপুঞ্জিত অগ্রগতি

০১ জেলা কার্যালয় ১০৬ ২২২
০২ যুব প্রশিক্ষণ কেন্দ্র - -

 

০৩

কুড়িগ্রাম সদর

১৪০

৩৯২০

 

০৪

রাজারহাট

১৪৪

৩৫৬৪

 

০৫

উলিপুর

১০৮

৪৩৯৪

 

০৬

চিলমারী

৮৪

২০৫৩

 

০৭

রৌমারী

৬৮

৩৪২৫

 

০৮

রাজিবপুর

৬০

২৩৪৬

 

০৯

নাগেশ্বরী

৭৫

৩৪৯৫

 

১০

ফুলবাড়ী

১৫৪

৩৭৩০

 

১১

ভূরুংঙ্গামারী

৯২

৩০৬৯

সর্বমোট=

১০৩১

৩০২১৮

৩)     যুব ঋণ কর্মসূচিঃ

 

 যুব ঋণ কর্মসূচি দুই ধরণের যথা- (ক) গ্রুপ ভিত্তিক ঋণ কর্মসূচিঃ এ কর্মসূচির আওতায় বেকার যুবদের পারিবারিক গ্রুপে সংগঠিত করে ঋণ প্রদান করা হয়। প্রতি গ্রুপের সদস্য সংখ্যা ০৫ জন। গ্রুপের প্রত্যেক সদস্যকে প্রাথমিক পর্যায়ে সর্বোচ্চ ১০,০০০/-টাকা করে ঋণ প্রদান করা হয় এবং পর্যায়ক্রমে ২০,০০০/-টাকা পর্যন্ত ঋণ প্রদান করা হয়।

 

(খ) একক ঋণ কর্মসূচিঃ এ কর্মসূচির আওতায় প্রাতিষ্ঠানিক ও অপ্রাতিষ্ঠানিক কোর্সে প্রশিক্ষিত যুবদের একক ঋণ প্রদান করা হয়। প্রত্যেক সদস্যকে সর্বন্মি ৩০,০০০/-টাকা হতে সর্বোচ্চ ১,০০,০০০/- টাকা করে ঋণ প্রদান করা হয়।

 

ঋণ কর্মসূচি:

ক্রমিক নং

কর্মসূচির নাম

২০১৬-২০১৭

 

অর্থবছরে বিতরণ

ক্রমপুঞ্জিত ঋণ বিতরণ

মোট

 

উপকারভোগীর

 

সংখ্যা

০১

যুব ঋণ

৫৬,৮৪,০০৩/-

৮,৮১,৬১,৪০০/-

৪৭৯৭ জন

০২

পরিবার ভিত্তিক ঋণ

-

১৭,২২,৫৪,০০০/-

১১৪৩৯ জন

০৩

উত্তরবঙ্গ প্রকল্প ঋণ

২,৫৭,৭৯,০০০/-

৫,৫৯,১৪,০০০/-

১৮৩৪ জন

 

সর্বমোট=

৩,১৪,৬৩,০০৩/-

৩১,৬৩,২৯,৪০০/-

১৮০৭০ জন

 

৪)      উদ্বুদ্ধকরণ ও সচেতনতাবৃদ্ধিমূলক কর্মসূচিঃ 

 

এ কর্মসূচির আওতায়  শিক্ষিত বেকার যুবদের এইচআইভি/এইডস/এসটিডি প্রতিরোধ, প্রজনন স্বাস্থ্য, মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার, সামাজিক রীতি-নীতি, মূল্যবোধ, জেন্ডার ও উন্নয়ন, সুশাসন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা, পরিবেশ সংরক্ষণ, সিভিক এডুকেশন, জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণ,পরিবার কল্যাণ ইত্যাদি বিষয়ে উদ্বুদ্ধকরণ ও সচেতনতা বৃদ্ধি করা হয়।

 

৫)     সরকারী ও বেসরকারী পার্টনারশীপ কর্মসূচিঃ 

 

এ কর্মসূচির আওতায় বিভিন্ন সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের সাথে যৌথ উদ্যোগে দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ ও সমাজ সচেতনতামূলক  কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করা হয়েছে। যেসব প্রতিষ্ঠানের সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মাধ্যমে কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে,সেগুলো  হচ্ছে-বিজিএমইএ এবং বিইউএফটি এর মাধ্যমে সোয়েটার নিটিং এবং লিংকিং মেশিন অপারেটিং প্রশিক্ষণ কোর্স পরিচালিত হচ্ছে।

 

৬। শিরোনাম : “উত্তরবঙ্গের ০৭টি জেলার বেকার যুবদের কর্মসংস্থান ও    আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি”।

 

১। প্রকল্পের উদ্দেশ্য:

(ক) দুগ্ধ খামার স্থাপনের মাধ্যমে দুগ্ধজাতদ্রব্যের উৎপাদন বৃদ্ধি ও বেকার যুবদের কর্মসংস্থান ও আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি করা।

(খ) গরু মোটাতাজাকরণের মাধ্যমে আমিষের উৎপাদন বৃদ্ধি ও কর্মসংস্থান এবং আত্মকর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করা।

                 (গ) যুব সম্প্রদায়কে গোষ্টি উন্নয়ন কর্মকান্ডে সম্প্রক্ত করা।

  (ঘ) দারিদ্র্য হ্রাসকরণের মাধ্যমে উত্তরবংঙ্গের বেকার যুবদের   sustainabe livelihood (টেকসই জীবন যাত্রা) নিশ্চিত করা।



 

২। প্রকল্পের মেয়াদকাল : ফের্রুয়ারী ২০১২ হতে জুন ২০১৪ পর্যন্ত।

৩। প্রকল্পভূক্ত জেলা সমূহ : রংপুর, লালমনিরহাট, নীলফামারী, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রাম, পঞ্চগড় ও নাটোর।

৪। প্রকল্পের কার্যক্রম :ক) বেকার যুবক ও যুবমহিলাদের দক্ষতাবৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ প্রদান।

৫। উত্তরবঙ্গ প্রকল্পের ঋণ গ্রুপ ভিত্তিক ঋণ, গ্রুপের সদস্য সংখ্যা ০৫ জন। গ্রুপের প্রত্যেক সদস্যকে প্রাথমিক পর্যায়ে সর্বোচ্চ ২৫,০০,০০০/-টাকা করে ঋণ প্রদান করা হয়

 

৫। প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত তথ্য নিম্নরুপ :

ক্র:নং

প্রশিক্ষণ ট্রেডের নাম

মেয়াদ

প্রতিব্যাচে প্রশিক্ষণার্থীর সংখ্যা

মন্তব্য

০১

গাভী পালন

১০ দিন

২৫ জন

প্রতিদিন ৪টি সেশন

০২

গরু মোটাতাজাকরণ

১০ দিন

২৫ জন

প্রতিদিন ৪টি সেশন

০৩

নার্সারী স্থাপন

১০ দিন

২৫ জন

প্রতিদিন ৪টি সেশন

৬) প্রশিক্ষণ সংক্রান্ত তথ্য (উপজেলা ওয়ারী) :

 

ক্রমিক নং

উপজেলার নাম

২০১৬-২০১৭

অর্থবছরের অগ্রগতি

ক্রমপুঞ্জিত অগ্রগতি

কুড়িগ্রাম সদর ২০০ ৮২৫
রাজারহাট ২০০ ৮২২
উলিপুর ২০০ ৮২৫
চিলমারী ২০০ ৮২৫
রৌমারী ২০০ ৮২৫
রাজিবপুর ২০০ ৮২৫
নাগেশ্বরী ২০০ ৮২৫
ফুলবাড়ী ২০০ ৮২৫
ভূরুংগামারী ২০০ ৮২৫
  সর্বমোট ১৮০০ জন ৭৪২২ জন

৭)শিক্ষিত বেকার যুবদের অস্থায়ী ভিত্তিতে কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি :

 

১।ভূমিকা: বর্তমান সরকারের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে শিক্ষিতবেকার যুবক ও যুব মহিলাদের কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়“ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি’’ গ্রহণ করেছে। প্রাথমিকভাবে পাইলটিং হিসেবেকুড়িগ্রাম ও বরগুনা জেলায় এ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। পরবর্তীতে গোপালগঞ্জজেলাকেও এ কর্মসূচির অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে।নীতিমালা অনুসারে নির্বাচিতন্যূনতম এস,এস,সি পাশ বেকার যুবক ও যুব মহিলাদেরকে তিন মাস মেয়াদীপ্রশিক্ষণ শেষে দুই বছরের জন্য ন্যাশনাল সার্ভিসে নিযুক্ত করা হয়।প্রশিক্ষণ কালে সুবিধাভোগীদেরকে দৈনিক ১০০/-(একশত) টাকা হারে প্রশিক্ষণভাতা এবং প্রশিক্ষণ শেষে কর্মে সংযুক্তির পর থেকে দৈনিক ২০০/-(দুইশত) টাকাহারে মাসে ৩০ দিনের কর্মভাতা প্রদান করা হচ্ছে।

 

২।প্রাথমিক প্রস্ততি: কর্মসূচিতে অস্তর্ভূক্তির জন্য আগ্রহী বেকার যুবক ও যুব মহিলাদের নিকটথেকে জাতীয় পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ১৫ নভেম্বর, ২০০৯ তারিখ পর্যন্ত আবেদনজমা নেয়া হয়। পরবর্তীতে ২৫ নভেম্বর, ২০০৯ হতে ০৫ ডিসেম্বর, ২০০৯ তারিখপর্যন্ত সময়ে মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদেরকে দিয়ে নির্ধারিত ফরমে ১৮-৩৫বছর সয়সী ন্যূনতম এস,এস,সি পাশ সকল শিক্ষিত লোকের উপর জরিপ করা হয়। প্রাপ্তআবেদন এবং জরিপের মাধ্যমে বাছাই শেষে কুড়িগ্রাম জেলায় মোট ৩১,৭৪৭ জনকেন্যাশনালসার্ভিস কর্মসূচির সুবিধাভোগী বেকার হিসেবে প্রাথমিকভাবেতালিকাভূক্ত করা হয়। কুড়িগ্রাম জেলার ৯টি উপজেলার প্রশিক্ষণের অবকাঠামোগতসুবিধা বিবেচনা করে ১ম ব্যাচের প্রশিক্ষণের জন্য ৯৯৫০ জনকে নির্বাচন করাহয়েছিল। পাশাপাশি মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদেরকেও অগ্রাধিকার প্রদান করাহয়েছিল। প্রশিক্ষণ প্রদানের জন্য উপজেলা পর্যায়ে গঠিত মাস্টার টিমেরসদস্যদেরকে ০৫ দিনের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। ১৫ মার্চ, ২০১০ তারিখপর্যন্ত প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়। এতদ্সংক্রান্ত বিস্তারিত তথ্য নিম্নরুপ :

 

জরিপকৃত বেকারের সংখ্যা

বিজ্ঞাপন পরবতীর্তে প্রাপ্ত আবেদনের সংখ্যা

চুড়ান্ত বাছাইয়ে নির্বাচিত বেকারের সংখ্যা

প্রশিক্ষণ শুরুকারীর সংখ্যা

সফলভাবে প্রশিক্ষণ সমাপ্তকারীর সংখ্যা

প্রশিক্ষণশেষে সংযুক্তি প্রাপ্তদের সংখ্যা

৩১৭৪৭

৩৫০১৩

৩১৬২০

৩০৫৪১

২৯৮১৮

২৯৮১৫

 

৩।কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন: ১ম ব্যাচের প্রশিক্ষণের চুড়ান্ত প্রস্তুতির পর ০৬ মার্চ, ২০১০ তারিখেগণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কুড়িগ্রাম সরকারীকলেজ মাঠে আনুষ্ঠানিকভাবে কর্মসূচির শুভ উদ্বোধন করেন। মাননীয়প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক শুভ উদ্বোধনের পর ১৫ মার্চ থেকে একযোগে জেলার ৯টিউপজেলায় ৪১টি ভেন্যুতে তিন মাসব্যাপী প্রশিক্ষণ আরম্ভ করা হয়।প্রশিক্ষণম সংক্রান্ত বিস্তারিত বিবরণ নিম্নরুপ:

 

ব্যাচ নং

প্রশিক্ষণ শুরুর তারিখ

প্রশিক্ষণার্থীর সংখ্যা

প্রশিক্ষণকালীণ ড্রপআউট

প্রশিক্ষণ সমাপ্তকারীর সংখ্যা

প্রশিক্ষণ

সমাপ্তির তারিখ

১ম

১৫-০৩-১০

৯৯৫০

২২৯

৯৭২১

২৪-০৬-১০

২য়

১৪-১০-১০

৯৬৩২

১১৮

৯৫১৪

০২-০২-১১

৩য়

২৪-০২-১১

৭৫৫৫

১৯২

৭৩৬৩

০২-০৬-১১

৪র্থ

০২-০৭-১১

৩৪০৪

১৮৪

৩২২০

১৯-১০-১১

সর্বমোট

৩০৫৪১

৭২৩

২৯৮১৮

 

 

৪।কর্মে সংযুক্তি: কুড়িগ্রাম জেলার ন্যাশনাল সর্ভিস কর্মসূচির ১ম ব্যাচে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত৯৭২১ জনকে ১৫ জুলাই,২০১০ তারিখে দুই বছর মেয়াদে কাজে সংযুক্তি প্রদান করাহয়। পরবর্তীতে পর্যায়ক্রমে ২য়, ৩য় ও ৪র্থ ব্যাচের প্রশিক্ষণ সমাপ্তকারীদেরসংযুক্তি প্রদান করা হয়।সংযুক্তি সংক্রান্ত বিস্তারিত বিবরণ নিম্নরুপ:

 

ব্যাচ নং

সংযুক্তি প্রদানের তারিখ

সংযুক্তি প্রাপ্তদের সংখ্যা

সংযুক্তি সমাপ্তির তারিখ

১ম

১৫-০৭-১০

৯৭২১

১৪-০৭-১২

২য়

১০-০২-১১

৯৫১৪

০৯-০২-১৩

৩য়

০৩-০৭-১১

৭৩৬৩

০২-০৭-১৩

৪র্থ

০১-১১-১১

৩২১৭

৩১-১০-১৩

সর্বমোট

২৯৮১৫

 

৫। সুবিধাভোগিদের যে সকল সেক্টরে/প্রতিষ্ঠানে সংযুক্তি দেয়া হয়েছে তার বিবরণ নিম্নরুপ:

 

ক্রমিক নং

প্রতিষ্ঠান/বিভাগের নাম

সুবিধাভোগির সংখ্যা

০১

প্রাথমিক শিক্ষা

৬৩৫৯

০২

মাধ্যমিক শিক্ষা

৩৪৮৯

০৩

জননিরাপত্তা ও আইন শৃংখলা

১৩৮৫

০৪

ইউনিয়ন পরিষদ সেবা খাত

২৩৪৫

০৫

জেলা/উপজেলা প্রশাসন

৩০০

০৬

মৎস্য বিভাগ

৯১৫

০৭

কৃষি বিভাগ

৪০৩৯

০৮

স্বাস্থ্য বিভাগ

৪৪৮৩

০৯

পরিবার পরিকল্পনা

১২৫৮

১০

প্রাণী সম্পদ

১১৭১

১১

বন বিভাগ

৪২৩

১২

জেলা ও উপজেলার অন্যান্য সরকারি অফিস

৩৬৪৮

 

সর্বমোট

২৯৮১৫

৬।ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির আওতায় সংযুক্তিপ্রাপ্ত যুবক/যুব মহিলাগণবিভিন্ন সংস্থায় সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে সক্রিয় অবদান রাখছে। যেমন :

(১)প্রশিক্ষিতমেধাবী যুব ও যুবমহিলাদেরকে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেণীতে পাঠদানের কাজেনিয়োজিত করা হয়েছে। ফলে জেলায় শিক্ষাক্ষেত্রে উন্নতি সাধিত হয়েছে।

(২)যে সকল স্কুলে কম্পিউটার কোর্স চালু আছে সে সকল স্কুলে প্রশিক্ষিতযুবদেরকে কম্পিউটার প্রশিক্ষণ প্রদানের কাজে নেয়োজিত করা হয়েছে। তারাদক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছে।

(৩)উপজেলাসমূহের গ্রামেগঞ্জে জননিরাপত্তা, জনসম্পত্তি রক্ষণাবেক্ষণ, ট্রাফিকআইন এবং মৌলিক আইন বাস্তবায়নে সহযোগিতা করার জন্য কমিউনিটি পুলিশ হিসেবেআইন শৃংখলা বাহিনীর সাথে সংযুক্তি দেওয়ায় বর্তমানে আইন-শৃংখলা সন্তোষজনকরয়েছে।

(৪)স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা সেবা বিষয়ে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারী বেকার যুবক ওযুবমহিলাদেরকে স্বাস্থ্য সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ যেমন : হাসপাতাল, ক্লিনিক ইত্যাদি স্তানে স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণকারীদের সহায়তা প্রদানের কাজেসংযুক্তি করা হয়েছে। তারা সংশ্লিষ্ট কাজে সহায়তাকারী হিসেবে দক্ষতার সঙ্গেদায়িত্ব পালন করছে।

(৫)কৃষিবিষয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত যুবক/যুব মহিলাদেরকে কৃষি সংক্রান্ত তথ্যসেবাপ্রদানকারী প্রতিষ্ঠান ও কৃষকদের মধ্যে তথ্য আদান প্রদান, কৃষিজাত পন্যবাজারজাত করণ সংক্রান্ত তথ্য কৃষকদের নিকট পৌছানো এবং সার, বীজ, ডিজেলসংক্রান্ত সরকারী সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সহযোগীতার কাজে নিযুক্ত করা হয়েছে।ফলে কৃষি ক্ষেত্রে পূর্বের তুলনায় উন্নতিসাধিত হয়েছে।

(৬)প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত যুবক/যুব মহিলাদেরকে উপজেলা ও জেলার বিভিন্ন হোটেল, রেস্তোরা ও অন্যান্য খাদ্য দ্রব্য পরিবেশনকারী প্রতিষ্ঠানে ভেজাল প্রতিরোধেনজরদারী কর্মকান্ডে সহায়তার কাজে সম্পৃক্ত করা হয়েছে।

(৭)গবাদিপশু, হাঁস-মুরগী ও মৎস্য চাষ বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবক ও যুবমহিলাদেরকে আত্মকর্মসংস্থানের কাজে সহায়তা করার জন্য নিয়োজিত করা হয়েছে।তারা দক্ষতার সাথে দায়িত্ব পালন করছে।

(৮)প্রাকৃতিক দুর্যোগ সংক্রান্ত সচেতনতা সৃষ্টি তথ্য প্রচার এবং দুর্যোগপরবর্তী সময়ে উদ্ধার ও পুনর্বাসনে স্থানীয় প্রশাসনকে সহায়তা সেবা প্রদানকাজে প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদেরকে সংযুক্ত করা হয়েছে। দুর্যোগকালীণ সময়ে তারাযথাযথভাবে দায়িত্ব পালন করে।

(৯)পরিবেশ বিষয়ে সচেতনতা সৃষ্টি এবং নার্সারীতে চারা উত্তোরনের জন্য বীজসংগ্রহ, চারা উত্তোলন, চারা রোপন, বাগান সৃজন ইত্যাদি কাজে সহায়তা প্রদানকরছে।

(১০) বয়স্কভাতা ও অন্যান্য সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করার বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়নের কাজে সহায়তা প্রদান করছে।

(১১)শ্যমলিমা নামে সামাজিক বনায়ন কার্যক্রমের আওতায় ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মীরাকুড়িগ্রাম সদর উপজেলায় ৬০,০০০(ষাট হাজার) গাছের চারা রোপন করছে। এই গছেরচারাগুলো পরিচর্যা ও দেখাশুনা তারা করছে। এর ফলে কুড়িগ্রাম জেলায় সামাজিকবনায়ন আগের চেয়ে অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

(১২)মাছের প্রজননের সময় মা মাছ নিধন থেকে বিরত থাকার জন্য ন্যাশনাল কর্মীরাজেলেদেরকে উদ্বুদ্ধ করেছে এবং পালাক্রমে তারা মাছের প্রজনন ক্ষেত্রগুলোপাহারা দিয়েছে। এতে প্রজননকালীণ মা মাছের বিচরণ ক্ষেত্র নিরাপদ থাকায়প্রজনন বৃদ্ধি পেয়েছে। এর ফলে বর্তমানে এ এলাকায় প্রচুর মাছ পাওয়া যাচ্ছে।

        উল্লেখ্য ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচিটি সমাপ্ত হয়েছে।

 

২। ঋণ সংক্রান্ত : প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত যুবদেরকে উপরোক্ত তিনটি বিষয়ে অর্থাৎ গাভীপালন, গরু মোটাতাজাকরণ এবং নার্সারী স্থাপন প্রকল্পে বিদ্যমান ক্রেডিট ম্যানুয়াল অনুযায়ী(ব্যক্তি কেন্দ্রিক) ঋণ বিতরণ ও আদায় করা হয়।

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের কর্মপরিধিঃ

 

            বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কার্যবন্টন ( রুলস অব বিজনেসের ১ নং তফসিল)  অনুযায়ী যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের অধীন যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপর নিম্নবর্ণিত কার্যাদি অর্পিত হয়েছেঃ

 

·        যুবদের কল্যাণ, প্রশিক্ষণ ও অন্যান্য বিষয়ক সকল কার্যাদি।

·        উন্নয়নমূলক কাজে যুবদের স্বেচ্ছায় অংশগ্রহণে উৎসাহিত করা।

·        যুবদের কল্যাণের জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সাথে সংযোগ রাখা।

·        নির্দিষ্ট প্রকল্পের জন্য অর্থ মঞ্জুরী।

·        যুব পুরস্কার প্রদান।

·        যুবদেরকে দায়িত্বশীল, আত্মবিশ্বাসী এবং অন্যান্য মানবিক গুণাবলী অর্জনে উৎসাহ প্রদানের জন্য কর্মসূচি গ্রহণ।

·        যুব  উন্নয়ন কার্যক্রমের উপর গবেষণা ও জরীপ।

·        বেকার যুবদের জন্য কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে কার্যক্রম গ্রহণ।  

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের ভিশনঃ

 

v        অনুৎপাদনশীল যুব সমাজকে সুসংগঠিত, সুশৃংখল এবং উৎপাদনমূখী শক্তিতে রূপান্তর করা।

v        দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে যুবদের কর্মসংস্থান কিংবা আত্মকর্মসংস্থানে নিয়োজিত করা।

v        জাতীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডে বেকার যুবদের সম্পৃক্ত করা।

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, কুড়িগ্রাম  জেলা কার্যালয়ের রাজস্ব ও উন্নয়ন খাতের জনবলের তথ্যঃ

 

পদের নাম

অনুমোদিত পদের নাম

বিদ্যমান পদের সংখ্যা

শূন্যপদ

রাজস্ব

উন্নয়ন

মোট

রাজস্ব

উন্নয়ন

মোট

রাজস্ব

উন্নয়ন

মোট

উপ-পরিচালক

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

সহকারী পরিচালক

০২

-

০২

০১

-

০১

০১

-

০১

সিনিয়র প্রশিক্ষক(ষ্টেনো )

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক(ষ্টেনো )

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক (পোশাক তৈরী)

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক(মৎস্য)

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক(কম্পিউটার)

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক(ইলেকট্রনিক্স)

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক(আর এ সি)

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

প্রশিক্ষক(ইলেকট্রিক্যাল এন্ড

হাউজ ওয়্যারিং)

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

উচ্চমান সহকারী

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

সহকারী প্রশিক্ষক(কম্পিউটার )

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

সহকারী প্রশিক্ষক(ইলেকট্রনিক্স)

-

০১

০১

-

-

-

-

০১

০১

সহকারী প্রশিক্ষক(আর এ সি )

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

সহকারী প্রশিক্ষক(ইলেকট্রিক্যাল:)

-

০১

০১

-

-

-

-

০১

০১

জুনিয়র প্রশিক্ষক( পোশাক)

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

ডাটা এন্টি অপরেটর

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

গাড়ী চালক

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

এম, এল, এস, এস

০৩

-

০৩

০২

-

০২

০১

-

০১

নৈশ্য প্রহরী কাম ফরাস

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

গার্ড

০১

-

০১

০১

-

০১

-

-

-

এম, এল, এস, এস কাম-গার্ড

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

হেলপার কাম গার্ড

-

০১

০১

-

০১

০১

-

-

-

মোট

১৬

১০

২৬

১৪

০৮

২২

০২

০১

০৪

 

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর, কুড়িগ্রাম  জেলার ০৯ টি উপজেলা কার্যালয়ের জনবলের তথ্যঃ

 

পদের নাম

অনুমোদিত পদের নাম

বিদ্যমান পদের সংখ্যা

শূন্যপদ

রাজস্ব

উন্নয়ন

মোট

রাজস্ব

উন্নয়ন

মোট

রাজস্ব

উন্নয়ন

মোট

উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা

০৯

-

০৯

০৭

-

০৭

০২

-

০২

ক্রেডিট সুপার ভাইজার

২৭

-

২৭

২২

-

২২

০৫

-

০৫

অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর

০৯

-

০৯

০৯

-

০৯

-

-

-

ক্যাশিয়ার

০৯

-

০৯

০১

-

০১

০৮

-

০৮

এম, এল, এস, এস

০৯

-

০৯

০৮

-

০৮

০১

-

০১

মোট

৬৩

-

৬৩

৪৭

-

৪৭

১৬

-

১৬

যোগাযোগ-

উপ-পরিচালক
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর
কুড়িগ্রাম
টেলিফোন; ০৫৮১-৬১৫৬২ । ই মেইল-
ddkurigram@dyd.gov.bd

অথবা

উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় ,কুড়িগ্রাম জেলার সকল উপজেলা।

   অপ্রাতিষ্ঠানিক ( ভ্রাম্যমান ) ট্রেড সমূহঃ

সাধারণত উপজেলা পর্যায়ে অপ্রাতিষ্ঠানিক বা ভ্রাম্যমান প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা যুব সংগঠন / ক্লাবে এ প্রশিক্ষণের ভেন্যু হিসাবে ব্যবহার করা হয়। যেহেতু প্রত্যন্ত এলাকায় গিয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয় সেহেতু বেকার যুবদের এ প্রশিক্ষণ গ্রহণ খরচ ও সময় কম হয়। অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ গ্রহণে বেকার যুবদের কোন প্রকার প্রশিক্ষণ ফি প্রদান করতে হয় না । যে সমস্ত ট্রেডে অপ্রাতিষ্ঠানিক প্রশিক্ষণ প্রদাণ করা হয় তা নিম্নরূপঃ

  • পারিবারিক হাঁস মুরগি পালন।
  • গরু মোটা-তাজা করন ।
  • গাভি পালন ।
  • বসত বাড়ীতে সব্জী চাষ ।
  • নার্সারি বনায়ন ।
  • ছাগল পালন ।
  • মৎস্য চাষ ।
  • পোষাক তৈরি ।
  • এবং স্থানীয় চাহিদার ভিত্তিতে ট্রেড নির্ধারন করে প্রশিক্ষণ দেয়া হয় ।  যোগাযোগের ঠিকানাঃ
  • উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় , সংশ্লিষ্ট উপজেলা, কুড়িগ্রাম ।

                                              ঋণ কর্মসূচি

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর সাধারণত দুই  ধরণের ঋণ দিয়ে থাকে ।

১) ব্যক্তি ঋণ :
২) গ্রুপ ঋণ :

ব্যক্তি ঋণ/যুব ঋণ : - শুধু যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণের পর লাভ জনক প্রকল্প গ্রহণকারীকে এ ঋণ প্রদান করা হয় । ব্যক্তি শ্রেণী ঋণ আবার দুই প্রকার ।
১) প্রাতিষ্ঠানিক :  প্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীর অনুকূলে এ ঋণ প্রদান করা হয় এবং যার পরিমান  সর্বোচ্চ ৭৫০০০/(পচাত্তর হাজার) টাকা ।

2) অপ্রাতিষ্ঠানিক ট্রেডে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারী যুবদের প্রকল্পের কলেবর বৃদ্ধির জন্য সর্বোচ্চ ২৫০০০/(পঁচিশ হাজার) টাকা পর্যন্ত এ শ্রেণীর আওতায় ঋণ প্রদান করা হয় ।

সফল ভাবে ঋণ পরিশোধ কারীকে ৩ বার ঋণ প্রদাণ করা হয় । ঋণের সার্ভিস চার্জের পরিমাণ ১০% যা ক্রমহ্রাসমান হারে ৫% এ নির্ধারিত হয় ।

যোগাযোগের ঠিকানা :  উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় , সংশ্লিষ্ট উপজেলা , কুড়িগ্রাম ।

গ্রুপ ঋণ

পরিবারের সদস্যদের নিয়ে গ্রুপ গঠন করে এ প্রকারের ঋণ দেয়া হয়। এ ঋণ পরিবার ভিত্তিক  প্রদাণ করা হয় । পারিবারিক ঐতিহ্য রক্ষা  ও মুল্যবোধ  সমুন্নত রাখার লক্ষ্যে পারিবারিক সম্প্রিতি , শ্রদ্ধাবোধ জাগিয়ে তোলার মাধ্যমে  পরিবারকে উন্নয়নের একক হিসেবে প্রাধান্য দিয়ে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টিই এ প্রকার ঋণ কর্মসূচির মুল লক্ষ্য ।
কর্মসূচির আওতায় ৫ জন সদস্য নিয়ে ১টি গ্রুপ এবং ৮-১০ টি গ্রুপ নিয়ে ১ টি কেন্দ্র গঠন করা হয়। প্রতি সদস্য ১ম দফায় ৮০০০/ টাকা করে ঋণ পায় ৩ সপ্তাহ গ্রেস পিরিয়ড বাদে ৫০ সপ্তাহে এ ঋণ পরিশোধ করতে হয়। পরিশোধের পর ধারাবাহিক ভাবে ৫ম দফা পর্যন্ত ঋণ দেয়া হয় । প্রতি দফায় ঋণের পরিমান ২০০০/ টাকা করে বৃদ্ধি পায়  অর্থাৎ ৫ম দফায় এক জন ঋণ গ্রহিতা ১৬০০০/ টাকা ঋণ পায়। যদি ১ টি পরিবারের ৫ জন সদস্য থাকে তবে সে পরিবার ৫ম দফায় ৮০০০০/ টাকা ঋণ পায়। সার্ভিস চার্জ ৫% ।
৫ম দফা পরিশোধের পর ১ টি গ্রুপের ১ জন সদস্যকে এন্টারপ্রাইজ ঋণ প্রদান করা হয়। যার পরিমান ৩০০০০/ টাকা -৫০০০০/ টাকা পর্যন্ত হয়ে থাকে ।

যোগাযোগের ঠিকানা:-  উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় কুড়িগ্রাম।

যুব সংগঠন তালিকা ভূক্তিকরণঃ

বেসরকারী স্বেচ্ছাসেবী যুব সংগঠন সমূহকে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দেশের আর্থসামাজিক উন্নয়নে সম্পৃক্তকরণের দায়িত্ব যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর পালন করে থাকে। যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উন্নয়ন সহযোগী  হিসেবে যুব সংগঠন তালিকাভূক্তি করে।

যোগাযোগের ঠিকানা- উপ-পরিচালকের কার্যালয়
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর , কুড়িগ্রাম।

উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়।
সংশ্লিষ্ট উপজেলা।

যুব সংগঠনকে অনুদান প্রদান :

যুব সংগঠন সমূহকে দেশ গঠন মূলক কর্মসূচি বাস্তবায়নের জন্য আর্থিক সহায়তা  প্রদানের নিমিত্ত যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় কর্তৃক যুব কল্যাণ তহবিল হতে প্রতি বছর অনুদান প্রদান করা হয় ।তা ছাড়া কর্মসূচি সুষ্ঠভাবে বাস্তবায়নের জন্য সংগঠন সমূহকে অনুন্নয়ন খাত থেকেও অনুদান দেয়া হয়।

যোগাযোগের ঠিকানা- উপ-পরিচালকের কার্যালয়
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর , কুড়িগ্রাম।

উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয়।
সংশ্লিষ্ট উপজেলা।

সার্ক ইয়ূথ এওয়ার্ডদক্ষিণ এশীয় অঞ্চলে যুবদের সৃজনশীল ও অনুকরণীয় যুব কার্যক্রমের স্বীকৃতি স্বরূপ ১৯৯৭ সাল থেকে ” সার্ক ইয়ূথ এওয়ার্ড” স্কীম চালু করা হয় । বাংলাদেশে এ এওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

যোগাযোগের ঠিকানা- পরিচালকে ( বাস্তবায়ন ) প্রধান কার্যালয়, ঢাকা।
উপ-পরিচালক ( জেলা কার্যালয় )।
উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় ।

কমনওয়েলথ ইয়ূথ এওয়ার্ড প্রাদান :

যুব উন্নয়ন কর্মকান্ডে অবদান।সংগঠনের মাধ্যমে সমাজ উন্নয়ন কর্মকান্ড, আদিবাসী যুবদের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড, যুব সংগঠনের মাধ্যমে প্রকল্প ভিত্তিক কমিউনিটি ডেভেলপমেন্ট ও স্বনির্ভর কার্যক্রমের জন্য বাংলাদেশী যুবক / যুব সংগঠনকে কমনওয়েলথ ইয়ূথ এওয়ার্ড প্রদান করা হয়।

যোগাযোগের ঠিকানা- পরিচালকে ( বাস্তবায়ন ) প্রধান কার্যালয়, ঢাকা।
উপ-পরিচালক ( জেলা কার্যালয় )।
উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তার কার্যালয় ।

জাতীয় যুব পুরস্কার-

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে প্রশিক্ষণ গ্রহণ পূর্বক  আত্বকর্মসংস্থানে সফলতা অর্জন করে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে  এবং যাদের সমাজের ইতিবাচক পরিবর্তনে ভুমিকা আছে  সে  সকল যুবক /যুব মহিলা প্রকল্প গ্রহণ  কারীকে জাতীয় যুব পুরস্কার প্রদান করা হয় । তাছাড়া যুব সংগঠক যারা যুব উন্নয়ন কর্মকান্ডে অনন্য অবদান রাখে তাদের মধ্য থেকে জাতীয় যুব পুরস্কার প্রদান করা হয়।

কুড়িগ্রাম জেলায় এক জন জাতীয় যুব পুরস্কার পেয়েছে তাঁর নাম ঠিকানা নিম্নে প্রদান করা হলো :

জনাব মো: আব্দুল গফুর

পিতা: মরহুম ফজল উদ্দিন মুন্সি

গ্রাম: কৃষ্ণপুর , (নীলারাম)

কুড়িগ্রাম সদর, কুড়িগ্রাম।

তথ্য প্রদান :

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক প্রদত্ত সকল প্রকার সেবা কর্মকান্ডের তথ্য  প্রদান করা হয়ে থাকে।

যোগাযোগের ঠিকানাঃ সহকারী পরিচালক , কুড়িগ্রাম জেলা কার্যালয়
উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা , উপজেলা কার্যালয় ,কুড়িগ্রাম সকল ।

বিভিন্ন অনিয়ম বিষয়ে অভিযোগঃ

সুনির্দিষ্ট অভযোগ দাখিল করা -
মহাপরিচালক , যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর ,১০৮ মতিঝিল বা/এ ঢাকা ।
অথবা

উপ-পরিচালক,
যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর
কুড়িগ্রাম

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)